২৪ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে মেহেরপুরে হেযবুত তওহীদের উদ্যোগে এক বিশাল ধর্মসভা বা ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাহফিলে ধর্মের প্রকৃত শিক্ষা বিস্তারের মধ্য দিয়ে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানান বক্তারা।
গতকাল মেহেরপুর সদরের কুলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে এ ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মেহেরপুর জেলা হেযবুত তওহীদের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে মাহফিলে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম। সময় আরো উপস্থিত ছিলেন হেযবুত তওহীদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান ও শেখ মনিরুল ইসলাম, কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদ ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য শহীদুল ইসলাম প্রমুখ। মাহফিলে বক্তারা বলেন, ধর্ম এসেছে মানবতার কল্যাণে। কিন্তু হাজার বছরের ব্যবধানে আজকে ধর্মের প্রকৃত শিক্ষা হারিয়ে গেছে। তারা বলেন, আল্লাহর রসুল পৃথিবীতে এসেছেন মানবজাতিকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য। অথচ আজকে মুসলিম জাতি দল-ফেরকা-মাজহাবে বিভক্ত হয়ে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জাতি হতে দুর্বলতম জাতিতে পরিণত হয়েছে। ইসলামের জঙ্গিবাদের কোনো স্থান নেই উল্লেখ করে তারা বলেন, জঙ্গিবাদ মূলত ইসলামের বিরুদ্ধে এক গভীর ষড়যন্ত্র। পৃথিবীব্যাপী ইসলামকে একটি সন্ত্রাসী আদর্শ হিসেবে তুলে ধরার জন্য এই জঙ্গিবাদের জন্ম ও বিস্তার ঘটানো হয়েছে।
হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম বলেন, আজকে পৃথিবীময় যে ইসলাম চলছে তা মানুষকে শান্তি দিতে পারছে না। যেহেতু ইসলাম মানেই শান্তি, সুতরাং এই ইসলাম আর আল্লাহর রসুলের ইসলাম এক হতে পারে না। তিনি বলেন, হেযবুত তওহীদ মানুষের সামনে সেই ইসলামের কথা তুলে ধরছে, যে ইসলাম নিয়ে রসুলাল্লাহ আরবদের ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন। মুসলিম জাতিকে তাদের হারানো ঐতিহ্য, গৌরব ও শ্রেষ্ঠত্ব ফিরে পেতে আজকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার কোনো বিকল্প নেই বলে তিনি মন্তব্য করেন।
মাহফিলে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ দুই হাজারেরও অধিক জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন। হেযবুত তওহীদের এমাম তার দীর্ঘ প্রায় তিন ঘণ্টা ব্যাপী ইসলামে প্রবিষ্ট বহুমুখী বিকৃতিসমূহ এবং প্রকৃত ইসলামের স্বরূপ তুলে ধরেন। উপস্থিত জনতা মন্ত্রমুগ্ধের ন্যায় শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত তার ভাষণ উপভোগ করেন। মাহফিল শেষে উপস্থিত জনতার চোখে-মুখে ছিল তৃপ্তির হাসি। হেযবুত তওহীদের এমামের বক্তব্য শুনে ইসলাম ধর্মকে নতুনভাবে উপলব্ধি করছি, এমন মন্তব্য করতে শোনা যায় অনেককে।