নোয়াখালীতে সাংবাদিকদের নিয়ে হেযবুত তওহীদের ইফতার মাহফিল

নোয়াখালী জেলা হেযবুত তওহীদের আয়োজনে গনমাধ্যম কর্মীদের নিয়ে আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১১ এপ্রিল ২০২২ইং রোজ সোমবার বিকেলে সোনাইমুড়ী শহীদি জামে মসজিদের কনফারেন্স রুমে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। হেযবুত তওহীদের চট্টগ্রাম বিভাগীয় আমীর নিজাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ইফতারপূর্ব আলোচনা সভায় মুখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন হেযবুত তওহীদের  মাননীয় এমাম জনাব হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম।

এসময় তিনি তার পরিবারের উপর দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা অন্যায়, অবিচার, অপপ্রচার ও নির্যাতনের কথা তুলে ধরেন। বিশেষ করে ২০১৬ সালের ১৪ই মার্চ তাঁর বাড়িতে নির্মাণাধীন মসজিদকে গীর্জা বলে গুজব রটিয়ে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ও দুই সদস্যকে জবাই করে হত্যা করার রোমহর্ষক ঘটনার বর্ণনা ও তথ্যচিত্র তুলে ধরেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, একটি স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠী মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিকে হাইজ্যাক করে এই ধ্বংসাত্মক ঘটনা ঘটিয়েছে এবং আরেকটি গোষ্ঠী পূর্ব পারিবারিক শত্রুতার জের ধরে এই হামলার নেপথ্যে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ইন্ধন যুগিয়েছে।

অনুষ্ঠানে নোয়াখালী জেলা ও বিভিন্ন উপজেলায় কর্মরত গনমাধ্যম কর্মীসহ পাশ্ববর্তী জেলা থেকে আগত গনমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

মাননীয় এমাম আরো বলেন- তার বাড়িতে হামলা, তাণ্ডব ও হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটিকে পরবর্তীতে স্বার্থান্বেষী মহল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে অপব্যবহার করেছে। ফলে সেই ঘটনায় জড়িত আসামীরা যথাযথ শাস্তির আওতায় আসছে না। তবে হেযবুত তওহীদ শত্রুতার বদলে ভ্রাতৃত্ব, হিংসার বদলে সম্প্রীতি, ধ্বংসের বদলে নির্মাণ ও অজ্ঞতার বদলে শিক্ষার আলো জালানোর পথ বেছে নিয়েছে। হেযবুত তওহীদের স্থানীয় কর্মীদের নিরলস প্রচেষ্টায় সোনাইমুড়িতে নানা ধরনের উন্নয়ন প্রকল্প গড়ে উঠেছে বলে এসময় জানান তিনি। আলোচনা সভা শেষে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে হৃদ্যতাপূর্ণ পরিবেশে ইফতার গ্রহণ করেন হেযবুত তওহীদের নেতৃবৃন্দ।

জনপ্রিয় পোস্টসমূহ