রুফায়দাহ পন্নী:

যৌবনে এমানুযযামান, স্থান: করটিয়া ও মঈননগর, টাঙ্গাইল

যৌবনে এমানুযযামান, স্থান: করটিয়া ও মঈননগর, টাঙ্গাইল

যৌবনে এমানুযযামান, স্থান: করটিয়া ও মঈননগর, টাঙ্গাইল

যৌবনে এমানুযযামান, স্থান: করটিয়া ও মঈননগর, টাঙ্গাইল

১৫৪০ সালে মুঘল সম্রাট হুমায়ূন পরাজিত হয়ে দিল্লীর সিংহাসন হারান আফগান শাসক শের শাহ এর কাছে। তার আগেই কয়েকবারের প্রচেষ্টায় বাংলা ও বিহার জয় করে নিয়েছিলেন শের শাহ, যা কিছুদিন আগেই মুঘল সাম্রাজ্যভুক্ত হয়েছিল।
.
পরে ১৫৫৬ সালে পানি পথের দ্বিতীয় যুদ্ধে আকবর মুঘল সাম্রাজ্য পুনরুদ্ধার করলেও বাংলা থেকে যায় আফগানদের হাতেই। যা হোক, দক্ষিণ বিহারের জায়গির লাভ করেছিলেন শের শাহের দুই সেনাপতি তাজ খান কররানি (পন্নী) ও তার ভাই সুলায়মান খান কররানি (পন্নী)।
.
ক্রমে তারা পুরো বিহার ও বাংলা তাদের শাসনাধীন করেন (১৫৬৪ সাল) এবং বাংলা-বিহারের স্বাধীন সুলতান হিসাবে অধিষ্ঠিত হন।
.
আমার বাবা হেযবুত তওহীদ আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা মাননীয় এমামুযযামান জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী বাংলার স্বাধীন সুলতান সোলায়মান খান পন্নীরই ১৩ তম উত্তরপুরুষ।
.