পাবনায় দেশেরপত্রের জেলা কার্যালয় উদ্বোধন করলেন ভূমিমন্ত্রী

দৈনিক দেশেরপত্রের পাবনা জেলা ব্যুরো অফিস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মঞ্চে উপস্থিত (বাম থেকে) দেশেরপত্রের উপদেষ্টা মসীহ উর রহমান, পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জনাব খন্দকার আহমেদ শরিফ ডাবলু, পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল রহিম লাল, দৈনিক দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী, বাংলাদেশ সরকাররের ভূমি মন্ত্রী ও পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ভাষা সৈনিক বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব শামসুর রহমান শরীফ ডিলু এম.পি, বাংলাদেশ সরকারের পাবনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জনাব আবুল কালাম আজাদ বাবু।
দৈনিক দেশেরপত্রের পাবনা জেলা ব্যুরো অফিস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মঞ্চে উপস্থিত (বাম থেকে) দেশেরপত্রের উপদেষ্টা মসীহ উর রহমান, পাবনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জনাব খন্দকার আহমেদ শরিফ ডাবলু, পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল রহিম লাল, দৈনিক দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী, বাংলাদেশ সরকাররের ভূমি মন্ত্রী ও পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ভাষা সৈনিক বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব শামসুর রহমান শরীফ ডিলু এম.পি, বাংলাদেশ সরকারের পাবনা-৫ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জনাব আবুল কালাম আজাদ বাবু।

পাবনার ডিসি রোড, কৃষ্ণপুরে উদ্বোধন করা হলো দৈনিক দেশেরপত্রের জেলা ব্যুরো কার্যালয়। কার্যালয়টি উদ্বোধন করেছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশে সরকারের মাননীয় ভূমি মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু, এম.পি। উল্লেখ্য, দৈনিক দেশেরপত্র মানবতার কল্যাণে আত্মনিয়োজিত হয়ে দেশের ষোল কোটি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার কাজ করে যাচ্ছে। একই সাথে দেশের প্রতিটি অঞ্চলের মানুষের সাথে আরো গভীরভাবে সম্পৃক্ত হওয়ার অভিপ্রায় নিয়ে নতুন নতুন এলাকায় বি¯তৃত করছে তার কার্যক্রম। এরই ধারাবাহিকতায় পাবনায় স্থাপন করা হয়েছে পাবনা জেলা ব্যুরো কার্যালয়। কার্যালয় উদ্বোধন উপলক্ষে এদিন সকালে একটি মনোমুগ্ধকর র‌্যালির আয়োজন করা হয়। র‌্যালি উদ্বোধন করেন দেশেপত্রের নির্বাহী সম্পাদক শফিকুল আলম উখবাহ। র‌্যালিটি সকাল ১০ টায় ব্যুরো কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বেলা ১২ টায় পুনরায় একই স্থানে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে ব্যবহৃত মোটরসাইকল, ইজিবাইক, পিকআপ ভ্যানগুলোকে বর্নাঢ্য সাজে সাজানো হয়। ব্যান্ড পার্টির তালে তালে এগিয়ে যাওয়া র‌্যালিটি পাবনা শহরে এক অন্যরকম উৎসবের আমেজ সৃষ্টি করে।
কার্যালয় উদ্বোধন উপলক্ষে পরে পার্শ্বস্থ মাঠে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভূমি মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু, এম.পি। উক্ত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পাবনা-৫ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক খন্দকার প্রিন্স, দৈনিক দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী, দেশেরপত্রের উপদেষ্টা মসীহ উর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল রহিম লাল, বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবুল কালাম আযাদ (বাবু), জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি খন্দকার আহমেদ শরীফ ডাবলু। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দৈনিক দেশেরপত্রের পাবনা জেলা ব্যুরো প্রধান শামসুয্যামান মিলন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন দেশেরপত্রর বিশেষ প্রতিনিধি আসমা মনি এবং মাহতাব উদ্দিন।
অনুষ্ঠানের সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, ‘আজ আমরা ষোল কোটি বাঙালি জাতি যদি ঐক্যবদ্ধ থাকতাম, বিভিন্ন দলে-উপদলে বিভক্ত না থাকতাম- তাহলে আজকে আমাদের দেশে এই রাজনৈতিক দুরবস্থার সৃষ্টি হতো না। আমরা পৃথিবীতে একটি উন্নত ও সম্মানী জাতি হিসেবে আবির্ভূত হতাম। তাই দেশের ষোল কোটি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছে দৈনিক দেশেরপত্র।’
দেশেরপত্রের উপদেষ্টা মসীহ উর রহমান বলেন, আমরা জানতাম না, আমরা বুঝতাম না কোন পথে মানুষের মুক্তি আসবে, কোন পথে আসবে কল্যাণ। সমাজের অন্যান্য মানুষগুলো যেভাবে চলছে আমরাও সেভাবেই চলছিলাম। কিন্তু আমাদের প্রাণপ্রিয় এমাম, টাঙ্গাইলের ঐতিহ্যবাহী পন্নী পরিবারের সন্তান জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর কাছ থেকে আমরা সঠিক পথের সন্ধান লাভ করেছি। তাঁর কাছ থেকে শিক্ষা নিয়ে আমরা এই আদর্শকে প্রচার ও প্রতিষ্ঠার জন্য দৈনিক দেশেরপত্র প্রকাশ করে যাচ্ছি। অতীতে আমরা এ কাজ করতে গিয়ে দেখলাম এক শ্রেণির ধর্মীয় মোল্লারা আমাদের বিরোধী হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর কারণ হচ্ছে, আমাদের এমামুয্যামান হাদিস-কোর’আনের আলোকে প্রমাণ করে দিয়েছেন ইসলামে ধর্মব্যবসা ও ধর্মের বিনিময় নেওয়া কোনভাবেই বৈধ নয়। ইসলাম ধর্মের নামে মানুষকে কষ্ট দিয়ে অপ-রাজনীতি, মিছিল, মিটিং ও সন্ত্রাসী কার্যক্রমকেও কোনভাবে সমর্থন দেয় না। ইসলাম আল্লাহ প্রদত্ত জীবনব্যবস্থা। ইসলাম এসেছে মানুষের কল্যাণের জন্য, মানুষের মুক্তির জন্য। একই সাথে ইসলামের জন্য যারা কাজ করবে তারা তা করবে নিঃস্বার্থভাবে, নিজের জান-মাল দিয়ে, সম্পদ খরচ করে। আমরা সেভাবেই কাজ করে যাচ্ছি।
তিনি বলেন, ‘এদেশের সাধারণ মানুষ অত্যন্ত ধর্মভীরু এবং সহজ সরল। তারা ইসলাম সম্পর্কে সঠিক ধারণা রাখেনা। তাই ধর্মীয় ব্যাপারে ধর্মের আলেম, মোল্লাদের কাছে তারা একপ্রকারে জিম্মি হয়ে আছে। তারা যা বলে তাই তারা অন্ধভাবে মেনে নেয়, বিশ্বাস করে। তাদের কাছ থেকে ধর্মকে উদ্ধার করে তাকে সঠিক পথে ও সঠিকভাবে কাজে লাগিয়ে মানবতার মুক্তি ও শান্তি প্রতিষ্ঠাই আমাদের মূল কাজ। আমরা একাজে সাফল্য লাভ করবোই এনশা’আল্লাহ
‘উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী বলেন, দৈনিক দেশেরপত্র মানবতার কল্যাণে সত্যের প্রকাশে কাজ করে যাচ্ছে। আর সত্য হচ্ছে তাই যা আল্লাহর কর্তৃক নির্ধারিত। আল্লাহর দেওয়া সেই সত্যকেই তুলে ধরেছেন যামানার এমাম, এমামুয্যামান জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী।’ তিনি বলেন, ‘দেশেরপত্র যামানার এমাম জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর আদর্শে উজ্জীবিত। হারিয়ে যাওয়া আল্লাহ-রসুলের সেই প্রকৃত এসলামের স্বরূপ তুলে ধরতে গিয়ে তিনি ও তাঁর প্রতিষ্ঠিত আন্দোলন সবচেয়ে বিরোধিতার সম্মুখীন হয়েছে ধর্মব্যবসায়ী এবং অবৈধ ফতোয়াবাজদের দ্বারা। সাধারণ মানুষের ধর্মীয় দুর্বলতা ও সরলতার সুযোগে তাদের ইহকাল এবং পরকাল ঐসব মোল্লাশ্রেণির বন্দক পড়ে গেছে। সেই সুযোগে তারা অবৈধ স্বার্থ উদ্ধার ও নিজেদের জীবন-জীবিকা হাসিল করে নিচ্ছে। একই সাথে এই ধর্মব্যবসায়ী শ্রেণিটি রাজনীতির ক্ষেত্রে বিভিন্ন মিথ্যাচার ও ফতোয়ার মাধ্যমে মানুষকে বিভ্রান্ত বিভক্ত করে ফেলেছে। যার কারণে আজ জাতীয় ঐক্য খণ্ড-বিখণ্ড হয়ে গেছে। দেশেরপত্র সত্য প্রকাশের মাধ্যমে মানুষকে তাদের হাত থেকে উদ্ধার করার দায়িত্ব্ নিজ কাঁধে তুলে নিয়েছে।’ তিনি আরোর বলেন ‘দেশে স্থায়ীভাবে একটি শান্তিপূর্ণ পরিবেশ প্রতিষ্ঠার জন্য ধর্মব্যবসায়ীদের এ প্রতারণা, প্রচারণা ও ফতোয়াবাজী বন্ধ করতেই হবে।’
জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল রহিম লাল তার বক্তব্যে জঙ্গিবাদ ও ধর্মব্যবসায়ীদের মুখোশ উন্মোচনে দেশেরপত্রের ভূমিকা তুলে ধরা প্রামাণ্যচিত্রটি দেখে দেশেরপত্রের গৃহীত কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানান এবং একাজে সহযোগিতা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্র“তি প্রদান করেন।
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ভূমি মন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, ‘আজকের অনুষ্ঠানে এসে আমি দেখতে পেয়েছি কতগুলো স্লোগান ঝুলছে। তার মধ্যে একটি হচ্ছে ‘ঐক্যসূত্রে গাথ বাঙালিরে, সোনালি দিন আসবেই ফিরে’ এবং আরো অন্যান্য কথা থেকে বোঝা যায় দেশেরপত্র বাঙালি জাতীয়তাবাদ চেতনাকে সম্মান করে, বাঙালি চেতনার সাথে তাদের মিল রয়েছে। এতে প্রমাণিত হয় দেশেরপত্র বাংলাদেশের স্বাধীনতা, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং সকল ধর্মের মানুষের সমানাধিকারকে বিশ্বাস করে।’ তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলাদেশের মানুষ ১৯৬৯ সালে, ১৯৭০ এর নির্বাচনে এবং সর্বশেষ ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় একতাবদ্ধ হয়। আবার সেই বাঙালি জাতিকে একতাবদ্ধ করার জন্য দেশেরপত্র সামনে এগিয়ে এসেছে, যা তাদের কার্যক্রম থেকে স্পষ্ট হয়েছে।’ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রী দেশেরপত্রের এই মহতী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘আমরা মুসলমান, পবিত্র ইসলাম ধর্মে বিশ্বাসী। বঙ্গবন্ধুর ধর্মনিরপেক্ষ দেশ মানে ধর্মবিরোধী দেশ নয়। প্রত্যেকে তার ধর্মীয় স্বাধীনতা ও অধিকার ভোগ করবে এটাই হচ্ছে ধর্মনিরপেক্ষতা বা সেকুলারিজম। কিন্তু আজকে এর বিরুদ্ধে ধর্মব্যবসায়ী ও ইবলিসের চেলারা অপপ্রচার চালিয়ে আওয়ামী লীগকে ঠেকানোর চেষ্টা করছে। তারা শুধু আওয়ামী লীগের শত্র“ই নয়, তারা মানবতার শত্র“। তারা কোনদিনই বাঙালি জাতির উপর বিজয়ী হতে পারেনি, পারবেও না।’ মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় তার বক্তব্যে যামানার এমাম, এমামুয্যামান মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী ও তাঁর পূর্বপুরুষদের অতীত মহতী কর্মকাণ্ডের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

Search Here

জনপ্রিয় পোস্টসমূহ

ভোলায় দৈনিক দেশেরপত্র ও বজ্রশক্তির কার্যালয় উদ্বোধন

July 31, 2014

ধর্মব্যবসা, ধর্ম নিয়ে অপরাজনীতি আর জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে ‘এক জাতি এক দেশ, ঐক্যবদ্ধ বাংলাদেশ’ গড়ে তোলার জন্য কাজ করে যাচ্ছে দৈনিক দেশেরপত্র ও দৈনিক বজ্রশক্তি। এই কার্যক্রমকে আরো গতিময় করে তুলতে সারা দেশে বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে পত্রিকা দুইটির কার্যালয় উদ্বোধন করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ভোলা সদরে উদ্বোধন করা হয়েছে দৈনিক দেশেরপত্র […]

আরও→

দৈনিক দেশেরপত্রের বরিশাল বিভাগীয় ব্যুরো অফিস উদ্বোধন

July 16, 2014

(বামের ছবিতে) দৈনিক দেশেরপত্রের বরিশাল বিভাগীয় ব্যুরো অফিস উদ্বোধন করেন শফিকুল আলম উখবাহ,্ নির্বাহী সম্পাদক দৈনিক দেশেরপত্র। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বরিশাল বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান মো: রুহুল আমিন; সানাউল্লাহ নূরী, সহকারী সম্পাদক, দৈনিক দেশেরপত্র; ডি.আই.জি বরিশাল রেঞ্জ’র পক্ষে থেকে উপস্থিত এ.এস.পি ফজলুল করিম, স্টাফ অফিসার ডি.আই.জি কার্যালয়, বরিশাল; এ্যাড: মো: জামাল হোসেন, জজ কোর্ট, বরিশাল; […]

আরও→