চাঁদপুর, মতলব উত্তর থানার জিডি- ১৩৪৮ | হেযবুত তওহীদ

চাঁদপুর, মতলব উত্তর থানার জিডি- ১৩৪৮

সারকথা
চাঁদপুর, মতলব উত্তর থানার জিডি- ১৩৪৮, তারিখ- ৩১/০৫/২০১২ ইং, ধারা- ফৌজদারী কার্যবিধি আইনের ৫৪।
পরবর্তীতে, চাঁদপুর, মতলব উত্তর থানার এন এফ আই আর প্রসিকিউশন নম্বর- ৫৯, তারিখ- ১৪/০৬/২০১২ ইং,
ধারা- দন্ডবিধি আইনের ২৯৮।

সন্দিগ্ধ আসামী ১. মোঃ গোলাম কিবরিয়া (২৪),
২. মোঃ আসাদুজ্জামান শাওন (৩২),

প্রকৃত ঘটনাঃ এ যামানার এমামের অনুসারী গোলাম কিবরিয়া (২৪) ও আসাদুজ্জামান শাওন (৩২)-দ্বয় রাজনৈতিক নেতা এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিবর্গকে “আল্লাহর মোজে’জা হেযবুত তওহীদের বিজয় ঘোষণা” ও মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী রচিত ধর্মীয় বই নিয়ে হেযবুত তওহীদের কার্যক্রম সম্পর্কে অবগত করার উদ্দেশ্যে অত্র থানাধীন ছেংগারচর ইউ/পি চেয়ারম্যানের কাছে গেলে ইউ/পি চেয়ারম্যান হেযবুত তওহীদ-এর নাম শুনেই নিষিদ্ধ সংগঠনের জঙ্গি সদস্য বলে চিৎকার, চেঁচামেচী শুরু করে অতঃপর হেযবুত তওহীদ সদস্যদের কোন কথা বলার সুযোগ না দিয়ে ছেংগারচর বাজারে আটক করে রেখে নিষিদ্ধ ঘোষিত হেযবুত তওহীদের দু’জন জঙ্গি সদস্য আটক করে রেখেছি বলে থানায় তথ্য দিলে থানা পুলিশ উক্ত স্থানে এসে চেয়ারম্যানের নিকট থেকে হেযবুত তওহীদ সদস্যদের হেফাজতে নিয়ে থানায় এনে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদসহ আন্দোলন ও প্রকাশনাসমূহের বৈধতা যাচাই করে বেআইনী কিছু না পেয়েও থানা কর্তৃপক্ষ আটককৃতদের সন্দিগ্ধ আসামী হিসাবে আদালতে সোপর্দ করে। অতঃপর এস.আই মোঃ নূর নবী (আই/ও), মতলব উত্তর থানা প্রকাশ্যে ও গোপনে জিডি ঘটনার তদন্ত করে ধর্ম বিরোধী কোন কিছু না পেয়েও স্ব-প্রণোদিত বানানরীতিকে অ-এসলামিক আখ্যা দিয়ে আদালতে দন্ডবিধি আইনের ২৯৮ ধারা মতে (ধর্মীয় অনুভূতীতে আঘাত হানার অভিযোগ) প্রসিকিউশন দাখিল করে।

নন.এফ.আই.আর প্রসিকিউশনে আনীত অভিযোগঃ ছেংগার বাজারে উপস্থিত লোকদের মধ্যে হেযবুত তওহীদের নামে “আল্লাহর মোজে’জা হেযবুত তওহীদের বিজয় ঘোষণা” নামে লিফলেট বিতরণ করে। যাহার মধ্যে শুরুতেই বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম এবং ইসলাম শব্দের বিপরীতে এসলাম শব্দ ব্যবহার করিয়া লিফলেট ও পুস্তিকা বিতরণ করে। যার মধ্যে ইসলাম বিকৃত শব্দ থাকায় বাজারে উপস্থিত লোকদের মধ্যে বিভ্রান্তি ও উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। বাজারে উপস্থিত লোকজন উত্তেজিত হইয়া মারপিট করার জন্য আক্রমন করে। উক্ত সংবাদ পাইয়া আমি ও/সি সাহেবের নির্দেশে সঙ্গিয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হইয়া জনতার উত্তেজনা প্রশমিত করিয়া উক্ত আসামীদেরকে ফৌঃকাঃবিঃ ৫৪ ধারামতে গ্রেফতার করি করতঃ বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করি। আমার প্রকাশ্য ও গোপনে তদন্তে ও স্বাক্ষী প্রমাণে ঘটনার পারিপার্শি¦কতায় আসামীদের বিরুদ্ধে পেনেলকোড ২৯৮ ধারার অপরাধ প্রাথমিকভাবে সত্য বলিয়া প্রতিয়মান হওয়ায় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে ঘটনার বিবরণ অবগত করাইয়া থানার তদন্তের সাথে একমত পোষন করায় অত্র থানার নন.এফ.আই.আর নং- ৫৯/২০১২, তারিখ- ১৪/০৬/১২, ধারা- ২৯৮ দঃবিঃ আদালতে দাখিল করিলাম।

বিজ্ঞ আদালত প্রদত্ত আদেশঃ রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামীপক্ষের বক্তব্য শুনলাম। সামগ্রীক পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, আসামীগণ কোন নিষিদ্ধ সংগঠনের সদস্য নন। তাহাদের নিকট থেকে জব্দকৃত বই ও লিফলেট ২৯৮ দন্ডবিধি ধারার অপরাধ সংঘটনের কোন উপদান বিদ্যমান নাই।
আদেশ-২৯/০৮/২০১৩ ইং।